মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

ত্রাণশাখার প্রকল্প সমূহ

ত্রাণশাখার প্রকল্প সমূহ

কাবিখা (সাধারণ)মনত্রণালয় হতে মোট বরাদ্দ ত্রাণ ও পুনর্বাসন অধিদপ্তরকে প্রদান করা হয়।ত্রাণ ও পুনর্বাসন তা জেলা প্রশাসক বরাবর বরাদ্দ প্রদান করে। জেলা প্রশাসকতা উপজেলা নির্বাহী অফিসারদের/ উপজেলা চেয়ারম্যান এবং তা ইউপির মাধ্যমেবাস্তবায়ন করা হয়।
কাবিটা (সাধারণ)মন্ত্রণালয় হতে ত্রাণ ও পুনর্বাসন অধিদপ্তরকে বরাদ্দ প্রদান। ত্রাণ ওপুনর্বাসন অধিদপ্তর তা জেলা প্রশাসককে। জেলা প্রশাসক প্রদান করে তা উপজেলানির্বাহী অফিসার/ উপজেলা চেয়ারম্যানকে এবং ইউপি প্রকল্প গ্রহণ করে উপজেলাকমিটিতে প্রেরণ করে। জেলা কমিটির অনুমোদনের জন্য পাঠানো হয় জেলা প্রশাসকবরাবর। জেলা কর্ণধার কমিটির অনুমোদনের পর জিও আকারে তা উপজেলা কমিটির নিকটপ্রেরণ করা হয়। উপজেলা কমিটি ইউনিয়ন কমিটির মাধ্যমে কাবিখা প্রকল্পবাস্তবায়ন করে থাকে। 
কাবিখা(বিশেষ)মন্ত্রণালয় সরাসরি নির্বাচনী এলাকা ভিত্তিক সংশ্লিষ্ট সংসদ সদস্যদেরবরাবর বরাদ্দ প্রদান করে। সংসদ সদস্যগণ  প্রকল্প গ্রহণ করে তা উপজেলানির্বাহী অফিসারের মাধ্যমে  জেলা প্রশাসক বরাবর প্রেরণ করে।  জেলাপ্রশাসকগণ তা জি ও করে উপজেলা নির্বাহী অফিসার  বরাবর প্রদান করে এবংমাননীয় সংসদ সদস্য কর্তৃক অনুমোদিত প্রকল্প কমিটির মাধ্যমে তা বাস্তবায়নকরা হয়।
কাবিখা(বিশেষ)মন্ত্রণালয় সরাসরি নির্বাচনী এলাকা ভিত্তিক সংশ্লিষ্ট সংসদ সদস্যদেরবরাবর বরাদ্দ প্রদান করে। সংসদ সদস্যগণ  প্রকল্প গ্রহণ করে তা উপজেলানির্বাহী অফিসারের মাধ্যমে  জেলা প্রশাসক বরাবর প্রেরণ করে।  জেলাপ্রশাসকগণ তা জি ও করে উপজেলা নির্বাহী অফিসার  বরাবর প্রদান করে এবংমাননীয় সংসদ সদস্য কর্তৃক অনুমোদিত প্রকল্প কমিটির মাধ্যমে তা বাস্তবায়নকরা হয়।
(টেস্ট রিলিফ (সাধারণ) খাদ্য শস্য/নগদ টাকামন্ত্রণালয় কয়েকটি ধাপে বরাদ্দ প্রদান করে। অধিদপ্তর তা জনসংখ্যা ওদুঃস্থতা হারে  জেলা ও উপজেলা ভিত্তিক  বরাদ্দ প্রদান করে। জেলা প্রশাসকগণউপজেলা ভিত্তিক প্রকল্প তালিকা দাখিল করিতে বলেন। উপজেলা কমিটি তা ইউনিয়নভিত্তিক জনসংখ্যা ও দুঃস্থতা হারে পুনঃ বন্টন করেন। ইউনিয়ন কমিটি প্রকল্পগ্রহণ করে উপজেলা কমিটিতে  পাঠায়। উপজেলা কমিটি তা জেলা কমিটিতে অনুমোদনেরজন্য পাঠায়। জেলা কমিটি  অনুমোদনের পর জি ও  আকারে তা উপজেলায় পাঠাবে এবংইউনিয়ন কমিটির গঠিত প্রকল্প  বাস্তবায়ন কমিটির মাধ্যমে তা বাস্তবায়ন করাহয়।
(টেস্ট রিলিফ (বিশেষ)খাদ্য শস্য/নগদ টাকামন্ত্রণালয় সরাসরি নির্বাচনী এলাকা ভিত্তিক মাননীয় সংসদ সদস্যদেরঅনুকূলে বরাদ্দ প্রদান করে। মাননীয় সংসদ সদস্যগণ নীতিমালা মোতাবেক প্রকল্প  প্রকল্প গ্রহণ। উপজেলা নির্বাহী অফিসারের মাধ্যমে তা জেলা প্রশাসক বরাবরপ্রেরণ করা হয়।  জেলা প্রশাসক তালিকা মোতাবেক উপজেলা নির্বাহী অফিসার  বরাবর জি ও জারী করেন। উপজেলা নির্বাহী অফিসার জি ও প্রাপ্তির পর মাননীয়সংসদ সদস্য কর্তৃক অনুমোদিত প্রকল্প কমিটির মাধ্যমে তা  বাস্তবায়ন করা হয়।
অতি দরিদ্রদের জন্য কর্মসংস্থান কর্মসূচী (সামাজিক নিরাপত্তা বেস্টনী)মন্ত্রণালয় জনসংখ্যা ও দুঃস্ততার ভিত্তিতে উপজেলা ভিত্তিক বরাদ্দকর্মসূচী পরিচালক বরাবর প্রদান করে।  কর্মসূচী পরিচালক তা উপজেলা প্রশাসনেপ্রেরণ করে, জেলা প্রশাসক তা উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর প্রেরণ করেন।  উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার নামেযৌথভাবে পরিচালিত হিসাবে বরাদ্দের টাকা  জমা করা হয়। উপজেলা নির্বাহীঅফিসার তা জনসংখ্যা ও দুঃস্ততা অনুসারে বরাদ্দকৃত  কার্ড সংখ্যা পুনঃ বন্টনকরেন এবং প্রতি ইউনিয়নের জন্য  ট্যাগ অফিসার নিয়োগ করেন। ট্যাগ অফিসারেরমাধ্যমে ইউনিয়ন কমিটি বরাদ্দ অনুসারে শ্রমিক বাছাই করেন এবং তাদের স্ব স্বনামে  ১০.০০ টাকার মাধ্যমে নিকটতম ব্যাংকে হিসাব খোলেন। উপজেলার ব্যাংকহিসাব হতে ইউনিয়ন কমিটি ব্যাংকে বরাদ্দ অনুযায়ী টাকা প্রেরণ করা হয়।শ্রমিকের ব্যাংক হিসাব  খোলার পর কাজ শুরু করা হয় এবং প্রতি সপ্তাহেরবৃহস্পতিবার ইউনিয়ন হিসাব হতে শ্রমিকের হিসাবে টাকা স্থানান্তর করা হয়।
ভিজিএফকর্মসূচী (সামাজিক নিরাপত্তা বেস্টনী)অতি দরিদ্র/দিনমজুর বছরের যে সময়ে কাজ থাকে না। সেই সময় মন্ত্রণালয়ইউনিয়ন ভিত্তিকবরাদ্দ জেলা প্রশাসক বরাবর জারী করেন। জেলা প্রশাসকমমত্রণালয়ের বরাদ্দের আলোকে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিসারের অনুকুলেবরাদ্দ প্রদান করে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইউনিয়ন কমিটির মাধ্যমেউপকারভোগীর তালিকা প্রণয়ন করে খাদ্যশস্য বিতরণ করে।
জি আর (ক্যাশ)অর্থ বছরের শুরুতে মন্ত্রণালয় প্রত্যেক জেলা প্রশাসক বরাবর নিদিষ্টপরিমাণ টাকা বরাদ্দ দেয়া থাকে । জেলাধীন কোন জায়গা বন্যা, ঝড় বা কোনপ্রাকৃতিক দূর্যোগ সংগঠিত হলে প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা সরেজমিনপরিদর্শন করে ক্ষতিগ্রস্থ লোকদের মধ্যে নগদ সহায়তার জন্য উপজেলা নির্বাহীঅফিসারের মাধ্যমে জেলা প্রশাসকের বরাবর আবেদন করেন। আবেদনের প্রেক্ষিতে  জেলা প্রশাসক বিভিন্ন হারে টাকা বিতরণের জন্য উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবরচেক প্রদান করেন। উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মাষ্টার রোলেরমাধ্যমে  জনপ্রতিনিধির উপস্থিতিতে বিতরণের ব্যবস্থা নেয়।
জি আর (চাল)অর্থ বরাদ্দের ন্যায় খয়রাতি সাহায্য হিসাবে জেলা প্রশাসক বরাবর চালবরাদ্দ করা হয়। বিভিন্ন প্রাকৃতিক দূর্যোগে উপজেলা নির্বাহী অফিসারদেরচাহিদা মোতাবেক ক্ষতিগ্রস্থদের মাষ্টাররোলের মাধ্যমে বিতরণ করেন। তা ছাড়াএতিমখানা, বিভিন্ন ধর্মীয় অনুষ্ঠানে ভক্তদের খাবারের জন্য উপজেলা নির্বাহীঅফিসারের উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিস হতে মাধ্যমে চাল বিতরণ করা হয়।
শীতবস্ত্র বিতরণতীব্র মাত্রায় শীতের সময় ত্রাণ ও পুনর্বাসন  অধিদপ্তর জেলা প্রশাসকবরাবর শীতবস্ত্র প্রদান করেন। জেলা প্রশাসক দারিদ্রতা হার বিবেচনা করেউপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর  তা পুনঃ বরাদ্দ দেন। উপজেলা প্রশাসন বরাদ্দপাওয়া শীতবস্ত্র স্থানীয় জনপ্রতিনিধি  বা সরাসরি শীত ক্লিষ্ট জনদরিদ্রজনগোষ্ঠীর মাঝে তা বিতরণ করেন।
ঢেউটিনত্রাণ ও পুনর্বাসন  অধিদপ্তর জেলা প্রশাসকদের বরাদ্দ দেন। জেলা প্রশাসকদারিদ্রতার হারে তা উপজেলায় বরাদ্দ প্রদান করেন। উপজেলা প্রশাসন নীতিমালা  মোতাবেক টিন প্রতি ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান নির্বাচন করেন। মনোনীতব্যক্তি/প্রতিষ্ঠান নির্দিষ্ট আবেদন ফরম পুরণ করে, তাতে সংশ্লিষ্ট ইউপিচেয়ারম্যান, উপজেলা নির্বাহী অফিসার এবং মাননীয় সংসদ সদস্যের সুপারিশ গ্রহণকরেন। সুপারিশের ভিত্তিতে প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিস হতে গরীবদের মধ্যে  ঢেউটিন বিতরণ করা হয়।
সেতু কালভার্ট নির্মাণত্রাণ ও পুনর্বাসন  অধিদপ্তর সংশ্লিষ্ট উপজেলা বরাবর বরাদ্দ দান করেনএবং ব্রীজ নির্মাণের জন্য প্রস্তাব পাঠাতে বলা হয়। উপজেলা প্রকল্পবাস্তবায়ন কর্মকর্তা হাইড্রোলিক  ডাটাসহ ব্রীজ নির্মাণের স্থানের ছবিসহসংশ্লিষ্ট মাননীয় সংসদ সদস্যের সুপারিশ নিয়ে ত্রাণ ও পুনর্বাসন  অধিদপ্তরেপাঠান। প্রস্তাব অনুযায়ী দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রকৌশলী সরেজমিন যাচাই বাছাই করেনএর পর পুনর্বাসন  অধিদপ্তর কেন্দ্রিয়ভাবে  দরপত্র আহবান করে। দরপত্রউপজেলা কর্তৃপক্ষের নিকট দাখিলের পর যাচাই, বাছাই এবং  মূল্যায়নের পরউপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা ঠিকাদারকে চুক্তিপত্র এবং নিরাপত্তাজামানত  জমা দেয়ার জন্য পত্র প্রদান করেন এবং কার্যাদেশ প্রদান করেন।কার্যাদেশ দেয়ার পর, কার্যাদেশের কপি, তুলনামূলক বিবরণী,চুক্তিনামার কপিত্রাণ ও পুনর্বাসন  অধিদপ্তরে পাঠাতে হয়। সংশ্লিষ্ট কাগজপত্র ত্রাণ ওপুনর্বাসন  অধিদপ্তরে হস্তান্তরের পর , বরাদ্দ প্রদান করা হয়, ব্রীজসম্পূর্ণ বাস্তবায়নের পর ত্রাণ ও পুর্নবাসন অধিদপ্তর হতে চূড়ান্ত প্রাক্কলনঅনুমোদনের পর শতভাগ বিল পরিশোধ করা হয়।


Share with :

Facebook Twitter